ডিমের বাহারি কেক (পিঠা)

Print Friendly

ডিমের বাহারি কেক (Cake/Pitha) রেসিপিটি আসলে খুব ঝটপট এবং সহজে করা যায়। গ্রামে আমার বাবার বাড়িতে অতিথি আপ্যায়নে কম সময়ে কিছু একটা করতে হবে আবার একটু বৈচিত্রও দরকার এমন পরিস্থিতি হলে এই বাহারি পিঠাটা করা হত। সময় কম লাগে, এবং গ্রামে হাতের কাছেই আছে এমন উপকরণ – ডিম আর চালের গুঁড়াই মূল উপকরণ এই রেসিপিটিতে। আর কাটার পর দেখতে খুবই ভাল লাগে, তাই অতিথিও পছন্দ করত। ভাজাটা ভাল হলে খেতেও ভাল লাগে। আসুন এবার দেখি কি করে তৈরি করবেন ডিমের বাহারি কেক? [এই রেসিপি পোস্টটিতে ৪টা ছবি আছে]

ডিমের বাহারি কেক

পিঠাটি তেরচা করে কাটার পর ভেতরের সুন্দর টেক্সারটা ফুটে উঠবে

উপকরণ

ডিম – ১টা
চিনি – ৩ টেবিল চামচ
বেকিং পাউডার – ১ চা চামচ
তেল (ভাজার জন্য) – দেড় কাপ (ডুবো তেলে ভাজতে হবে)
লবন – ১ চিমটি পরিমাণ
চালের গুঁড়া – ১/২ কাপ

প্রস্তুত প্রণালী

প্রথমে চালের গুঁড়ার সাথে বেকিং পাউডার মিশিয়ে চালুনিতে চেলে নিন। এতে চালের গুঁড়ার সাথে বেকিং পাউডারটা ভাল করে মিশবে।

এবার একটি শুকনো বাটিতে ডিমটা ফেটে নিন। ফেটানো ডিমে চিনি ও লবন দিয়ে আবার ভাল করে ফেটুন, যাতে ডিমের পানিতে চিনিটুকু গলে যায়। এবার এই মিশ্রণে চালের গুঁড়া দিয়ে ভাল করে মেখে পেষ্ট তৈরী করুন। পেষ্ট পাতলা থাকলে কেক তুলতুলে হবে। তবে এই মিশ্রণে কোন পানি দেবেন না।

কড়াইয়ে তেল গরম করে তাতে গোল করে এক টেবিল চামচ ডিমের পেষ্ট দিন। পিঠার মত ডুবো তেলে ভাজুন, হালকা বাদামী রঙ হলে পিঠাটি তুলে সাথে সাথেই আবার ডিমের পেষ্টে ভাল করে চুবিয়ে ডুবো তেলে ছেড়ে দিন। আবার বাদামী রঙ ধারণ করলে একই ভাবে গোল পিঠাটি উঠিয়ে আবার মিশ্রণে চুবিয়ে ডুবো তেলে ছেড়ে বাদামী করে ভেজে তুলুন। এই প্রক্রিয়ায় পিঠাটি ডুবো তেল থেকে তুলে পেষ্টে চুবিয়ে আবার ডুবো তেলে ভাজুন। যতক্ষণ না ডিমের পেষ্টটি শেষ হয় ততক্ষণ এই প্রক্রিয়ায় পিঠাটি ভাজতে থাকুন। শেষবার ভেজে তুললে দেখবেন পিঠাটি বড় আকারের একটা গোলার মত দেখতে হবে (নীচের ছবিটা দেখুন)।

এবার গরম গরম কেকটি ছবির মত করে ছুরি দিয়ে কেটে নিন। কেকটি কাটতে একটু কায়দা করতে হবে, তেরচা করে কাটতে পারেন তাহলে ভেতরের সুন্দর টেক্সারটা ফুটে উঠবে (উপরের ছবিতে যেমনটি দেখছেন)।

গরম গরম পরিবেশন করুন। আধাঘন্টা পর কেকের নরম তুলতুলে ভাবটা থাকবে না, তখন একটু শক্ত হয়ে উঠবে, তাই শক্ত হওয়ার আগেই কেকটি কেটে পরিবেশন করুন।

এই পিঠাটি আমার ঘরে হালকা মিষ্টিই সবাই পছন্দ করে, তবে কেউ ৪ টেবিল চামচ কিংবা খানিকটা বেশি চিনি দিতে পারেন, আপনি যেমন পছন্দ করেন। পিঠাটি কেমন লাগলো জানাতে ভুলবেন না।

ছবিঃ ডিমের বাহারি কেকটি করতে বিভিন্ন পর্যায়গুলো – 

ডিমের বাহারি কেক (পিঠা)

ডিমের মিশ্রণে চুবিয়ে ডুবো তেলে ভাজতে ভাজতে পিঠাটি বড় হবে

ডিমের বাহারি কেক (পিঠা)

ডিমের মিশ্রণে চুবিয়ে ডুবো তেলে ভাজতে ভাজতে পিঠাটি বড় হবে, বার বার একই প্রক্রিয়াটি করতে হবে

ডিমের বাহারি কেক (পিঠা)

শেষবার ভেজে তুললে পিঠাটি বড় আকারের গোলার মত দেখাবে

ভূলু, চট্টগ্রাম, ২৩/০৭/২০১০

 

পোষ্টটি লিখেছেন: ভূলু | ভূলু'স রেসিপি

ভূলু | ভূলু'স রেসিপি এই ব্লগে 96 টি পোষ্ট লিখেছেন .

আমি 'ফজলুর নূর ভূলু'। আমার রান্নাঘরের অরিজিনাল সব রেসিপি নিয়েই আমার এই ব্লগ - "ভূলু'স রেসিপি"। এই রেসিপি ব্লগের মাধ্যমে আমি দেশি খাবার আর তার অতুলনীয় স্বাদের বৈচিত্র তুলে ধরতে চাই। সাথে আমাদের আঞ্চলিক এবং ঐতিহ্যবাহী রান্নাগুলোও থাকবে। ভবিষ্যতে এইসব রেসিপি আর ব্লগের গল্পগাঁথা নিয়ে একটি বই প্রকাশের ইচ্ছে আছে।

happy wheels

প্রিয় খাদ্যরসিক ভাই ও বোনেরা, নতুন রেসিপি পেতে নীচের বক্সে আপনার ইমেইল ঠিকানা দিয়ে সাবস্ক্রাইব করুন। ব্লগে প্রকাশ হওয়ার সাথে সাথেই পৌঁছে যাবে আপনার ইমেইলে।

2 thoughts on “ডিমের বাহারি কেক (পিঠা)

Comments are closed.

Facebook

Get the Facebook Likebox Slider Pro for WordPress